সাহেদ এক নষ্ট ছেলে ! গোপনে ৩ বিয়ে, সাথে আরো ৫ বান্ধবী


করোনার তান্ডবে সবাই যেন মৃত্যুর দিন গুণছে । এই পর্যন্ত করোনার কোন ভ্যাক্সিন ব্যাবহারের জন্য বাজারে আসেনি হয়ত অপেক্ষা করতে হবে আরো অনেক প্রহর । এত বড় মহামারির মাঝেও যেন থেমে নেই দুর্নীতিবাজের দল। মানুষের সমস্যা মানেই যেন কিছু মানুষের ব্যবসা গরম। তেমনই এক কান্ড করলেন রাজধানীর রিজেন্ট হাসপাতালের মালিক সাহেদ।

সাহেদ এক নষ্ট ছেলে ! গোপনে ৩ বিয়ে, সাথে আরো ৫ বান্ধবী  




করোনাভাইরাসের চিকিৎসা নিয়ে জালিয়াতি এবং ভুয়া সার্টিফিকেট প্রদান করার জন্য রিজেন্ট হাসপাতালের চেয়ারম্যান সাহেদের নামে মামলা করে র‍্যাব। তারপর থেকেই সে নিখোজ । গুঞ্জন উঠেছে তিনি রাজনীতিবিদদের ছায়ায় থেকেই এই রকম কর্মকান্ড চালিয়েছেন।বর্তমানে সামাজিক মাধ্যমে এই নিয়ে তুমুল আলোচনা হচ্ছে সবাই তার প্রতি ক্ষোভ প্রকাশ করছেন। এর মাঝেই পাওয়া গেল আরেক বিস্ময়কর নিউজ। তার জালিয়াতি প্রকাশ পাওয়ার পরপরই আরেক স্ত্রীর পরিচয় পাওয়া যায় তার নাম সাদিয়া আরাবী। পাশাপাশি তার অফিসের কর্মচারীরা বলছেন তার আরো একটি বউ আছে তার নাম চৈতি ।


সাহেদ এক নষ্ট ছেলে ! গোপনে ৩ বিয়ে, সাথে আরো ৫ বান্ধবী  


এছাড়াও সাহেদের ছিলো আরো ৫ বান্ধবী এদের মধ্যে তার অফিসেই ছিলেন লিজা ও মার্জিয়া। অনেকে তাদেরকেও তার বউ বলে আশংকা প্রকাশ করছেন। শুধু লিজা ,মার্জিয়ারাই নয় সাহেদের সাথে আরো অনেক নারীর অবৈধ সম্পর্ক ছিল বলে জানায় তার সহকর্মীরা। বাংলাদেশে এইরকম সাহেদ আরো অনেক রয়েছে কিছু ডানবের ছত্রছায়ায়।তবে কার আশ্রয়ে গড়ে ওঠে এইরকম সাহেদরা সেতাই এখন দেখার বিষয়। শুধু সাহেদই নয়। আমরা এর আগে দেখেছি পাপিয়া, সম্রাটের মত মাফিয়াদের যারা সরকারি ক্ষমতার অপব্যবহার করে হাতিয়ে নিয়েছে শত শত কোটি টাকা। এখন সবারই মনে প্রশ্ন জাগে সরকারি দলে এমন কারা আছে যাদের ছায়ায় তারা এই রকম ঘৃণ্য কর্মকান্ড চালিয়ে যাচ্ছে কিন্তু তারা কিছুই বলছে না নাকি তারা দেখেও না দেখার ভান করে!!


সাহেদ এক নষ্ট ছেলে ! গোপনে ৩ বিয়ে, সাথে আরো ৫ বান্ধবী  


রিজেন্ট হাসপাতালের চেয়ারম্যান সাহেদের সাথে আওয়ামীলীগ দলীয় বিভিন্ন নেতাকর্মীদের ছবি সম্প্রতি সোশ্যাল মিদীয়ায় ভাইরাল হয় কিন্তু সরকারি দলের সকল নেতাকর্মীই এখন তাকে চেনেন না বলে দাবি করছেন তাই এখন সকলের প্রশ্ন কোন রকম পরিচয় ছাড়াই কি যে কেউ সরকারি অনুষ্ঠানে আমন্ত্রিত হতে পারে!! এম পি মন্ত্রীর সাহচর্যে এসে ফটোশ্যুট করতে পারে!! অথচ তারা এখন কেউ তাকে চেনেন না নাকি দুর্নীতি ফাস হলেই সবাই তখন হয়ে যায় অচেনা। রিজেন্ট হাসপাতালের চেয়ারম্যান সাহেদ গত বছরেই বিভিন্ন তেলিভিশন চ্যানেলে অতিথি হয়ে এসেছহিলেন এবং সেখানে তার অসৎ চেহারার উপরে সৎ মুখোশ পড়া বুলি ছেড়েছেন যার মাধ্যমে তিনি রাতারাতি বনে গিয়েছিলেন সোশ্যাল মিদিয়ায় তরুণদের জ্বলজ্যান্ত আইডল।কিন্তু যখনই তার বাস্তব চেহারা সকলের সামনে উন্মোচিত হল তখনই তিনি হয়ে গেলেন সকল সংবাদ মাধ্যম কর্মীদের কাছেও অচেনা। তবে সকল নাটের গুরু কারা, কাদের ছত্রছায়ায় এই রকম সাহেদের তৈরি হয় সমাজ যদি ওইরকম কীট গুলোকে খুজে বের করে ধ্বংস না করতে পারে তাহলে এই সমাজ কোন দিন পাপিয়া, সাহেদ, সম্রাট মুক্ত হতে পারবেনা এবং যার মাধ্যমে এই দেশের উন্নতি ব্যাহত হতে থাকবে বছরের পর বছর।


সব জল্পনা কল্পনা বাদ দিয়ে এখন এটাই দেখার পালা সে কবে গ্রেফতার হয় আর তার কি বিচার করে আদালত।

১২ জুলাই ২০২০






Post a Comment

0 Comments